আজ সোমবার 10:54 am13 July 2020    ২৮ আষাঢ় ১৪২৭    22 ذو القعدة 1441
For bangla
Total Bangla Logo

প্রধানমন্ত্রীর জন্মদিন বুধবার

বিশিষ্টজনদের শুভেচ্ছা

সালমান ফিদা

আলজাজিরাবাংলা.কম

প্রকাশিত : ০৭:১৯ পিএম, ২৭ সেপ্টেম্বর ২০১৬ মঙ্গলবার | আপডেট: ০৫:৪৪ পিএম, ২৮ সেপ্টেম্বর ২০১৬ বুধবার

বিশিষ্টজনদের শুভেচ্ছা

বিশিষ্টজনদের শুভেচ্ছা

বিশিষ্টজনরা জানান, দেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দেশের অর্থনৈতিক সমৃদ্ধি অর্জনের পাশাপাশি সম্প্রতি জাতিসংঘের সাধারণ পরিষদের অধিবেশনসহ বিভিন্ন আন্তর্জাতিক ফোরামে অংশগ্রহণের মাধ্যমে বিশ্বসভায় বাংলাদেশের ভাবমূর্তি উজ্জ্বল করেছেন।

তারা শেখ হাসিনাকে ডিজিটাল বাংলাদেশের রূপকার আখ্যা দিয়ে এবং নারীর ক্ষমতায়ন, দারিদ্র্য দূরীকরণ, জলবায়ু পরিবর্তনজনিত প্রতিকূলতা মোকাবেলায় গৃহীত বিভিন্ন পদক্ষেপের প্রশংসা করেন।

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের একান্ত সচিব ও বাংলাদেশ ব্যাংকের সাবেক গভর্নর ড. মোহাম্মদ ফরাস উদ্দিন প্রধানমন্ত্রীর জন্মদিনকে সামনে রেখে তার দীর্ঘায়ু কামনা করে তাকে জনবন্ধু আখ্যা দেন।

তিনি বলেন, ‘শেখ হাসিনার যোগ্য ও দৃঢ় নেতৃত্বে দেশের আর্থসামাজিক অগ্রগতি সাধিত হয়েছে। সামাজিক রূপান্তর ঘটেছে এবং দারিদ্র নির্মূল হচ্ছে। এজন্য সারা পৃথিবী তাকে ধনবাদ জানাচ্ছেন।

বাংলাদেশ ব্যাংকের সাবেক এ গভর্নর প্রধানমন্ত্রীকে একজন সৃজনশীল রাষ্ট্রনায়ক আখ্যা দিয়ে বলেন, বাংলাদেশের অর্থনীতি সম্পর্কে, পৃথিবীর রাজনৈতিক মিথস্ক্রিয়া এবং আমাদের ভূ-রাজনৈতিক পরিস্থিতি সম্পর্কে তিনি সম্পূর্ণ ওয়াকিবহাল। তিনি তাঁর মেধা ও নিষ্ঠা দিয়ে দেশকে উন্নয়নের মডেল হিসেবে বিশ্বে পরিচয় করিয়েছেন।

সাবেক তত্ত্বাবধায়ক সরকারের উপদেষ্টা বিশিষ্ট প্রকৌশলী অধ্যাপক জামিলুর রেজা চৌধুরী প্রধানমন্ত্রীর সাহসী ও উন্নয়নমুখী নেতৃত্বের প্রশংসা করে তার শুভ জন্মদিন কামনা করেন।

তিনি বলেন, ‘একজন প্রকৌশলী হিসেবে আমি মনে করি, যোগাযোগ খাতে অনেক উন্নয়ন সাধিত হয়েছে। পদ্মা সেতু এবং পায়রা সমুদ্র বন্দর নির্মাণের কাজ এগিয়ে চলেছে। যা দেশের বিশেষ করে দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের অর্থনৈতিক অগ্রগতিতে ভূমিকা রাখবে।’

এদিকে, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক আ আ ম স আরেফিন সিদ্দিক বলেন, ‘জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান জনগণের কল্যাণে জীবন উৎসর্গ করেছিলেন। তার কন্যা শেখ হাসিনাও সেই অঙ্গীকার ও দৃঢ়তা নিয়েই দেশকে উন্নয়নের দিকে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছেন।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক উপাচার্য একে আজাদ চৌধুরী বলেন, ‘উন্নয়নের বিভিন্ন শাখায় অসাধারণ অবদানের জন্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বিভিন্ন সম্মাননায় ভূষিত হয়েছেন। যা বিশ্বে দেশের ভাবমূর্তি উজ্জ্বল করেছে।’

তিনি আরও বলেন, ‘তার সাধারণ জীবন যাপন ও বিনয়ের জন্য ইতিমধ্যেই তিনি দেশের মানুষের হৃদয় ও মন জয় করেছেন। আমি তার সুস্থ্য ও দীর্ঘ জীবন কামনা করি।’

অন্যদিকে, বিশিষ্ট নাট্যব্যক্তিত্ব রামেন্দু মজুমদার বলেন, ‘শেখ হাসিনা এদেশের মানুষের একমাত্র আশ্রয় এবং উন্নয়নের প্রধান চালিকা শক্তি। তার দৃঢ় অঙ্গীকার না থাকলে বাংলাদেশের উন্নয়ন ও যুদ্ধাপরাধীদের বিচার কোনদিনই সম্ভব হতো না। তিনি দেশের মানুষকে ভালোবেসে বাবার মতই দুঃখী মানুষের মুখে হাসি ফোটাবার জন্য কাজ করেন।’

কথাসাহিত্যিক সেলিনা হোসেন দেশের বিপুল কর্মযজ্ঞে প্রধানমন্ত্রীর নিষ্ঠা ও শ্রমের জন্য জন্মদিনে তাকে অভিনন্দন, শুভেচ্ছা ও ভালোবাসা জানান।

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক উপাচার্য বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক ডা. প্রাণ গোপাল দত্ত বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার অর্জন অনেক। কিন্তু একজন চিকিৎসক হিসেবে আমার মনে যেটি বেশি দাগ কেটেছে সেটি হলো, কমিউনিটি ক্লিনিক। এই কমিউনিটি ক্লিনিকের মাধ্যমে একজন গর্ভবতী মা তার গর্ভাবস্থার প্রথম দিন থেকে সন্তান প্রসব করা পর্যন্ত প্রয়োজনীয় চিকিৎসা সেবা ও দিকনির্দেশনা দেয়া হয়। পৃথিবীর কোন দেশে এরকম অবকাঠামো নেই।’

বিশিষ্ট শিক্ষাবিদ ও সাবেক তত্বাবধায়ক সরকারের উপদেষ্টা রাশেদা কে চৌধুরী বলেন, ‘সাম্প্রদায়িকতা ও সহিংসতার বিরুদ্ধে প্রধানমন্ত্রীর দৃঢ় অবস্থানকে আমি শ্রদ্ধা করি। এই অনন্য মানবিক গুণাবলী এবং জাতীয় ও আন্তর্জাতিক পরিমন্ডলে নারীর ক্ষমতায়নে অবদানের জন্য ইতিহাসে শেখ হাসিনার নাম লেখা থাকবে।

প্রধানমন্ত্রীর জন্মদিনে জনপ্রিয় কথা সাহিত্যিক আনিসুল হক বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী একজন মায়ের মতো, একজন বোনের মতো। তিনি এমন মমতাপূর্ণ আচরণ করেন, মনে হয় না যে তিনি আমাদের দেশের প্রধানমন্ত্রী। তিনি সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙালীর শ্রেষ্ঠ কন্যা। যখনই তার বিভিন্ন অনুষ্ঠানে গিয়েছি, দেখেছি তিনি সবসময় অতিথিদের কাছে আসেন। খোঁজ খবর নেন, সবাই ঠিকমত খেয়েছে কিনা এবং দেয়া হয়েছে কিনা।

এ কথা সাহিত্যিক আরও বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী আমাদের নারীদের এগিয়ে যাওয়ার পেছনে বিশেষভাবে যত্নবান। আমি একজন লেখক হিসেবে বলবো যে, আমরা একজন সাহিত্যপ্রেমী প্রধানমন্ত্রী পেয়েছি। এটা আমাদের লেখকদের জন্য বিশেষভাবে গৌরবের বিষয়।’

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা জাতিসংঘের ৭১তম অধিবেশনে যোগ দিতে নিউইয়র্কে সফর শেষে বর্তমানে ভার্জিনিয়ায় অবস্থান করছেন। ৩০ সেপ্টেম্বর (শুক্রবার) তিনি দেশে ফিরবেন।

জানা গেছে, সারাদেশে সুবিধাবঞ্চিত মানুষের কল্যাণে বিভিন্ন সামাজিক কর্মকাণ্ডের মধ্য দিয়ে এই জন্মদিন উদযাপিত হবে। বুধবার শেখ হাসিনার সুস্বাস্থ্য ও দীর্ঘায়ু কামনা করে মসজিদ, মন্দির, গীর্জা, মঠসহ বিভিন্ন ধর্মীয় উপাসনালয়ে বিশেষ মোনাজাত ও প্রার্থনার আয়োজন করা হয়েছে।

রাজনীতি-এর সর্বশেষ খবর