আজ সোমবার 12:12 pm13 July 2020    ২৯ আষাঢ় ১৪২৭    22 ذو القعدة 1441
For bangla
Total Bangla Logo

বিতর্কে ট্রাম্পের যত মিথ্যা!

বিদেশ ডেস্ক

আলজাজিরাবাংলা.কম

প্রকাশিত : ০১:০৯ পিএম, ৩০ সেপ্টেম্বর ২০১৬ শুক্রবার | আপডেট: ০৫:৪৯ পিএম, ৫ অক্টোবর ২০১৬ বুধবার

ট্রাম্প

ট্রাম্প

স্থানীয় সময় গতকাল সোমবার রাত ৯টায় হফস্ট্রা বিশ্ববিদ্যালয়ে মুখোমুখি হন দুই প্রার্থী। উভয়ের যুক্তি, তর্ক বিশ্লেষণ করে নিজেদের অনলাইন সংস্করণে একটি প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে সিএনএন।

‘জলবায়ু পরিবর্তন চীনের ধোঁকাবাজি’

‘জলবায়ু পরিবর্তন হচ্ছে চীনাদের ধোঁকাবাজি’ -বিতর্কের সময় হিলারি ক্লিনটন দাবি করেন ট্রাম্প এ কথা বলেছেন। তবে তা অস্বীকার করেছেন ট্রাম্প।

ট্রাম্প মিথ্যা কথা বলেছেন। ২০১২ সালের ৬ নভেম্বর সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম টুইটারে ট্রাম্প লিখেছেন, ‘বৈশ্বিক উষ্ণতার ধারণা চীনাদের করা, মার্কিন উৎপাদনকে দুর্বল করাই উদ্দেশ্য।’ এর বছরখানেক পর ট্রাম্প বলেছেন, ‘বৈশ্বিক উষ্ণতা হচ্ছে একটি ব্যয়বহুল ফাঁকিবাজি।’

ট্রাম্প বলেন, ‘আবহাওয়া বদলায়। আপনার কাছে ঝড়, আপনার কাছে বৃষ্টি, আপনার কাছে সুন্দর দিন আসবে। আমি বিশ্বাস করি না আমাদের দেশের ভেতরে প্রতিষ্ঠানগুলো বন্ধ করে দেওয়া উচিত। দেখুন, চীন কিন্তু করেনি।’

জলবায়ু পরিবর্তনের ধারণা চীনের এবং এতে লাভ আসলে চীনেরই। এ কথা একাধিকবার বলেছেন ট্রাম্প।

‘চাকরি হারাচ্ছে যুক্তরাষ্ট্রের মানুষ’

যুক্তরাষ্ট্রের মানুষ চাকরি হারাচ্ছে। বির্তকে জোর দিয়ে ট্রাম্প এ কথা বলেছেন। ট্রাম্প বলেছেন, ‘মিশিগান, ওহাইয়োতে চাকরি হারাচ্ছে মানুষ। এ অবস্থা চলতে দেওয়া যায় না।’

অথচ সত্য কথাটা হচ্ছে, মিশিগান ও ওহাইও অঙ্গরাজ্যে নতুন কর্মসংস্থানের সুযোগ সৃষ্টি হয়েছে। অর্থনৈতিক সংকটের পর ওই দুই অঙ্গরাজ্যে কর্মসংস্থানের ব্যাপক সুযোগ সৃষ্টি হয়। সাড়ে ৫৫ লাখ কর্মী কাজ করছে ওহাইওতে।

‘মেক্সিকোতে চলে যাচ্ছে কর্মসংস্থান’

ট্রাম্প দাবি করেছেন যুক্তরাষ্ট্র থেকে চলে যাচ্ছে কর্মসংস্থান। প্রতিবেশী মেক্সিকোতেই চলে যাচ্ছে কর্মসংস্থান।

সম্প্রতি একটি প্রতিষ্ঠান যুক্তরাষ্ট্রের ইন্ডিয়ানাপোলিস থেকে মেক্সিকোতে যায়। সেখানে প্রায় এক হাজার চারশো জনের কর্মসংস্থান হয়। এ বিষয়টি সত্য। কিন্তু তাই বলে  যুক্তরাষ্ট্র থেকে কর্মসংস্থান সরে যাচ্ছে তা ঠিক নয়। ট্রাম্প অভিযোগ করেছেন ফোর্ড নামের প্রতিষ্ঠানের সরে যাওয়া নিয়ে। ট্রাম্পের অভিযোগ ফোর্ড কর্মসংস্থানের সুযোগ কমিয়ে দিচ্ছে। অথচ ফোর্ড এ অভিযোগ প্রত্যাখ্যান করেছে। ফোর্ড দাবি করেছে, মিশিগানে ফোর্ডের কারো চাকরি যায়নি।

‘নিউইয়র্কে সন্ত্রাস বাড়ছে’

ট্রাম্প দাবি করেছেন নিউইয়র্কে বেড়েছে সন্ত্রাস। তবে হিলারি দাবি করেছেন বর্তমান মেয়র বিল ডে ব্লাসিওর অধীনে নিউইয়র্ক ভালোই আছে। ট্রাম্প জোর গলায় হিলারিকে বলেন, ‘আপনার ধারণা ভুল।’

নিউইয়র্ক পুলিশের পরিসংখ্যান ও তথ্য ট্রাম্পকে ভুল প্রমাণ করেছে। পুলিশের তথ্য অনুযায়ী, নিউইয়র্ক সবচেয়ে নিরাপদ বছর পার করছে এবার। ১৯৯০ সালের সঙ্গে চলতি বছর তুলনা করলে দেখা যায় হত্যার ঘটনা কমে গেছে শতকরা ৮০ ভাগ। মেয়র ব্লাসিও দায়িত্ব নেওয়ার পর হত্যার ঘটনা বেশ কমেছে।    

তবে এ ক্ষেত্রে ট্রাম্পের যুক্তিকে মিথ্যা বলা হচ্ছে না সিএনএনের ওই প্রতিবেদনে। বলা হয়েছে, যুক্তরাষ্ট্রের সামগ্রিক অবস্থা বোঝাতে ট্রাম্প যথাযথ উদাহরণ দেননি। ট্রাম্পের দাবি সত্য হতে পারে কিন্তু বিভ্রান্তিকর।   

রাজনীতি-এর সর্বশেষ খবর