আজ রবিবার 8:20 pm05 July 2020    ২১ আষাঢ় ১৪২৭    14 ذو القعدة 1441
For bangla
Total Bangla Logo

নাঈমুল ইসলাম খানের বিরুদ্ধে সাংবাদিকদের মানববন্ধন

তাসকিনা ইয়াসমিন

টোটালবাংলা২৪.কম

প্রকাশিত : ০৮:১১ পিএম, ১৭ অক্টোবর ২০১৯ বৃহস্পতিবার | আপডেট: ০৮:১৭ পিএম, ১৭ অক্টোবর ২০১৯ বৃহস্পতিবার

নাঈমুল ইসলাম খানের বিরুদ্ধে সাংবাদিকদের মানববন্ধন

নাঈমুল ইসলাম খানের বিরুদ্ধে সাংবাদিকদের মানববন্ধন

সাংবাদিক নির্যাতন, নিয়োগপত্র ছাড়া নিয়োগ, অকারণে ছাটাই এবং ছাটাইয়ের পর মাস শেষে বেতন ভাতা না দেয়ার অভিযোগে আমাদের নতুন সময়, আমাদের অর্থনীতি ও আওয়ার টাইমস পত্রিকার প্রধান সম্পাদক নাঈমুল ইসলাম খানের বিরুদ্ধে মানববন্ধন করেছেন ভুক্তভোগী সাংবাদিকরা।

 

বৃহস্পতিবার (১৭ অক্টোবর) ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির সামনে দুপুর ১২টায় এ মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়।

 

মানববন্ধনে অংশগ্রহণ করেন বাংলাদেশ নারী সাংবাদিক কেন্দ্র’র সভাপতি নাসিমুন আরা হক মিনু বলেন, একজন সম্পাদক একজন রিপোর্টারের গায়ে হাত দিয়েছেন বলে আমরা জানতে পেরেছি। কোনো সম্পাদককে কোন রিপোর্টারের গায়ে হাত দিতে পারেন? এই কাজটা উনি (নাঈমুল ইসলাম খান) নিয়মিত করেন। আমি তার এই অন্যায় আচরণের তীব্র নিন্দা জানাই। উনি সম্পাদক হওয়ার যোগ্যতা রাখেন না।

 

তিনি বলেন, কোন সম্পাদকই কোন সাংবাদিকের সঙ্গে হাতাহাতি বা মারপিট করতে পারেন না। যে অন্যায় আচরণ করবে সে সম্পাদক হওয়ার যোগ্যতা অর্জন করতে পারবে না। অল্প টাকা বেতন, নিয়োগপত্র ছাড়া নিয়োগ, মিথ্যা অভিযোগে ছাঁটাইয়ের মতো অন্যায় আচরণ বন্ধ করতে হবে।

 

তিনি আরও বলেন, তিনি রিপাের্টার্স মিটিংয়ে এমন অসম্মানজনক কথাবার্তা বলেছেন যা মানববন্ধনে উচ্চারণ করার মতো নয়। তাকে এ ব্যাপারে বলা হলে তিনি বলেছেন, সাংবাদিকতা করতে হলে এগুলো শুনতে হবে! এমন কথা একজন সম্পাদক কিভাবে বলেন?

 

ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়নের কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্য খাইরুজ্জামান কামাল বলেন, সম্পাদক নাঈমুল ইসলাম খান তার গণমাধ্যমগুলো ছাটাই, নিয়োগপত্র ছাড়া নিয়োগ, ওয়েজবোর্ড ছাড়া বেতন দেয়া, নিয়ম-নীতিমালা মেনে না চলার সংস্কৃতি চালাচ্ছেন। তাঁর বিরুদ্ধে আমরা অভিযোগ পাবার পর আমরা তার করা আচরণের প্রতিবাদে মানববন্ধনে দাঁড়িয়েছি। আমরা চাই অচিরেই বাংলাদেশের গণমাধ্যমে এই ধরণের আচরণ বন্ধ হবে।

 

মানববন্ধন চলাকালে আমাদের নতুন সময় পত্রিকার সিনিয়র রিপোর্টার আনিসুর রহমান তপন এসে খায়রুজ্জামান কামালকে প্রশ্ন করেন, বাংলাদেশের অনেক পত্রিকায় নিয়মিত বেতন হয় না, আপনারা শুধুমাত্র নাঈমুল ইসলাম খানের বিরুদ্ধেই কেন মানববন্ধন করছেন? উত্তরে খায়রুজ্জামান কামাল বলেন, আমরা একজনের বিরুদ্ধে অভিযোগ পেয়েছি, এ জন্য তার বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করতে দাঁড়িয়েছে। আমরা সবসময় গণমাধ্যমের মালিকপক্ষের অন্যায় এবং অত্যাচারের বিপক্ষে।

 

নাঈমুল ইসলাম খানের গ্রুপ মিডিয়ার সাবেক ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিবেদক মুহাম্মদ ইলিয়াস হোসেন বলেন, আমি চারমাস কাজ করেছি। মাত্র দুই মাসের বেতন পেয়েছি। বাকি দুই মাসের বেতন আমাকে দেয়া হয়নি। আমাকে বলা হয়েছে, সাংবাদিকতা করবে আবার বেতন কেন দেয়া লাগবে? তার মানে কি দাঁড়ালো– তারা দুর্নীতিকে উৎসাহিত করছেন। আমাকে নিয়োগপত্র দেয়নি। শুধু আইডি কার্ড দিয়েছে। আমি বেতন চাইতে গেলে আমার সাথে খুব খারাপ ব্যবহার করা হয়েছে। আমি এই ধরণের আচরণের তীব্র প্রতিবাদ জানাই।

 

মানববন্ধনে আরো অংশ নেন সিনিয়র রিপোর্টার সেলিম সামাদ, সাংবাদিক সাজেদা হক, রিপোর্টার তাসকিনা ইয়াসমিনসহ বেশ কয়েকজন সাংবাদিক। এই সময় ‘বাংলাদেশের গণমাধ্যমের কর্ম পরিবেশ হোক নিরাপদ ও সম্মানজনক’, ‘ওয়েজবোর্ড ব্যতীত চুক্তিতে বেতন বন্ধ করো’, ‘নিয়োগপত্রবিহীন নিয়োগ বন্ধ করো’ লেখা প্লেকার্ড হাতে নিয়ে প্রতিবাদ করতে দেখা যায় তাদের।

বিনোদন-এর সর্বশেষ খবর