আজ বৃহস্পতিবার 7:33 am06 August 2020    ২১ শ্রাবণ ১৪২৭    16 ذو الحجة 1441
For bangla
Total Bangla Logo

ইনডিয়াকে জবাব দিতে ৭ সদস্যের কমিটি গঠন পাকিস্তানের

কাশ্মীর নিয়ে ইনডিয়ার দাবি উড়িয়ে দিল আমেরিকা

ডেস্ক রিপোর্ট, নেক নজদিক খান

টোটালবাংলা২৪.কম

প্রকাশিত : ০২:১২ পিএম, ৮ আগস্ট ২০১৯ বৃহস্পতিবার | আপডেট: ০২:১৩ পিএম, ৮ আগস্ট ২০১৯ বৃহস্পতিবার

আমেরিকা ও ইনডিয়ার পতাকা। ছবি: সংগৃহীত

আমেরিকা ও ইনডিয়ার পতাকা। ছবি: সংগৃহীত

ভারতীয় সংবিধান থেকে কাশ্মীরের বিশেষ মর্যাদা বাতিলের বিষয়ে যুক্তরাষ্ট্রকে জানিয়েছিল ভারত এমন খবর সরব হতেই মুখ খুলল ওয়াশিংটন। দেশটির এক সিনিয়র কূটনৈতিক দাবি করেছেন, কাশ্মীরের বিশেষ মর্যাদা বাতিলের বিষয়টি ভারত সরকার যুক্তরাষ্ট্রকে জানায়নি। খরব ডন ও এনডিটিভি।

 


বুধবার মার্কিন পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের দক্ষিণ ও মধ্য এশিয়ার ব্যুরো বলেছেন, জম্মু-কাশ্মীরকে বিশেষ সাংবিধানিক মর্যাদার বিষয়টি নিয়ে মার্কিন প্রশাসনের সঙ্গে ভারত আলোচনা করেনি বা জানায়নি।

এ বিবৃতিটির দায়িত্বে ছিলেন দক্ষিণ সহকারী সচিব অ্যালিস ওয়েলস। যিনি সাম্প্রতিক সময়ে পাকিস্তান সফর করেছিলেন।

এর আগে সোমবার ভারতের সংবাদমাধ্যমে বলা হয়, মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পেওকে জম্মু-কাশ্মীর থেকে বিশেষ মর্যাদা প্রত্যাহারের বিষয়টি জানিয়েছেন ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী এস জয়শঙ্কর।

 

 

নাম না প্রকাশ করার শর্তে সংবাদমাধ্যম জানিয়েছে, ১ আগস্ট ৯ম পূর্ব এশিয়া সামিটের ফাঁকে পম্পেওকে বিষয়টি জানান এএস জয়শঙ্কর। ফেব্রুয়ারিতে পুলওয়ামা হামলার পর মার্কিন নিরাপত্তা উপদেষ্টা জন বোল্টনকে বিষয়টি জানান ভারতের জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা অজিত দোভাল। এ সময় কাশ্মীরের বিশেষ মর্যাদা প্রত্যাহারের বিষয়টিও জানান তিনি।

এর আগে সোমবার ভারতের সরকারের একটি সূত্র এনডিটিভিকে জানিয়েছে, জম্মু-কাশ্মীর নিয়ে সরকার পদক্ষেপের বিষয়ে রাষ্ট্রসংঘের নিরাপত্তা পরিষদের, যুক্তরাষ্ট্রসহ পাঁচ সদস্য এবং বিদেশি সংবাদমাধ্যমকে জানিয়েছে ভারত।

যুক্তরাষ্ট্র ছাড়াও জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদের অন্য স্থায়ী সদস্যদের মধ্যে রয়েছে চীন, ফ্রান্স, রাশিয়া ও যুক্তরাজ্য।

 

 

ইনডিয়াকে জবাব দিতে ৭ সদস্যের কমিটি পাকিস্তানের

 


এদিকে কাশ্মীর ইস্যু নিয়ে ভারতকে আইনি, রাজনৈতিক ও কূটনৈতিক জবাব দিতে সাত সদস্যের কমিটি গঠন করেছেন পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান। মঙ্গলবার তিনি শীর্ষ নেতা ও কর্মকর্তাদের নিয়ে এ কমিটি গঠন করেন। খবর জিয়ো টিভি।


সাত সদস্যের বিশেষ কমিটিতে রয়েছেন, পররাষ্ট্রমন্ত্রী শাহ মাহমুদ কোরেশী, পাকিস্তানের অ্যাটর্নি জেনারেল আনোয়ার মনসুর খান, পররাষ্ট্র সচিব সোহায়েল মাহমুদ, প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ রাষ্ট্রদূত আহমেদ বিলাল সুফি, দুই গোয়েন্দা বিভাগ আইএসএস ও আইএসপিআরের দুই মহাপরিচালক।

বুধবার রাতে পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের সঙ্গে শীর্ষ নিরাপত্তা কমিটির বৈঠকে কাশ্মীরের বিশেষ মর্যাদা বাতিলে বর্তমান পরিস্থিতি নিয়ে আলোচনা করা হয়।

 

 

এতে ভারতের সঙ্গে কূটনৈতিক সম্পর্ক হ্রাস ও দ্বিপক্ষীয় বাণিজ্য সম্পর্ক স্থগিত করেছে পাকিস্তান। ইসলামাবাদের জাতীয় নিরাপত্তা কমিটি (এনএসসি) এ সিদ্ধান্ত নেয়।

বৈঠকে পাক-ভারত দ্বিপক্ষীয় চুক্তি নিয়ে পর্যালোচনা করার সিদ্ধান্ত হয়। এ ছাড়া বিষয়টি জাতিসংঘে উত্থাপন ও আগামী ১৪ আগস্ট কাশ্মীরিদের সঙ্গে সংহতি জানিয়ে আসন্ন স্বাধীনতা দিবস পালনের সিদ্ধান্ত নেয়া হয়।

বৈঠক শেষে এক বিবৃতিতে বলা হয়, ভারতীয় নির্মম বর্ণবাদী শাসন, মানবাধিকার লঙ্ঘনের ঘটনা প্রকাশের জন্য সব কূটনৈতিক চ্যানেলকে সক্রিয় করতে নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী।

 

 

বৈঠকে নয়াদিল্লি থেকে পাকিস্তানের রাষ্ট্রদূতকে ফিরিয়ে নেয়ার এবং ভারতীয় রাষ্ট্রদূতকে বহিষ্কার করার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়।

শাহ মাহমুদ কোরেশী বলেন, আমাদের রাষ্ট্রদূতরা আর নয়াদিল্লিতে থাকবেন না এবং এখানকার রাষ্ট্রদূতদেরও ফেরত পাঠানো হবে।

সোমবার ভারতীয় পার্লামেন্টের রাজ্যসভায় ৩৭০ ধারা বাতিলের প্রস্তাব ও রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দের স্বাক্ষরের পর পাকিস্তান পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় এক বিবৃতিতে তা প্রত্যাখ্যান করে।

 

 

৩৭০ ধারা বাতিলের তীব্র নিন্দা জানিয়ে পাকিস্তান পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় বলেছে, কাশ্মীর একটি বিরোধপূর্ণ এলাকা, যা আন্তর্জাতিকভাবে একটি স্বীকৃত বিষয়।

বিবৃতিতে বলা হয়, কাশ্মীর বিষয়ে ভারতের একতরফা সিদ্ধান্ত ওই রাজ্যটির বিশেষ মর্যাদা বাতিল করতে পারে না। কাশ্মীরি জনগণ ভারতের এমন সিদ্ধান্ত মেনে নেবে ন।

বিদেশ-এর সর্বশেষ খবর