আজ বৃহস্পতিবার 7:41 am06 August 2020    ২১ শ্রাবণ ১৪২৭    16 ذو الحجة 1441
For bangla
Total Bangla Logo

মাসুদ আজহারকে নিষিদ্ধ করতে চিনের সঙ্গে বসবে দিল্লি

বিদেশ ডেস্ক

আলজাজিরাবাংলা.কম

প্রকাশিত : ০৫:০৯ পিএম, ৮ অক্টোবর ২০১৬ শনিবার | আপডেট: ০৪:০৮ পিএম, ১১ অক্টোবর ২০১৬ মঙ্গলবার

মাসুদ আজহারকে নিষিদ্ধ করতে চিনের সঙ্গে বসবে দিল্লি

মাসুদ আজহারকে নিষিদ্ধ করতে চিনের সঙ্গে বসবে দিল্লি

জইশ প্রধানকে নিষিদ্ধ করতে পাঠানকোট হামলার পরে জাতিসংঘে আর্জি জানায় ইনডিয়া। চিন প্রক্রিয়াগত বিষয় নিয়ে আপত্তি তোলায় সেই চেষ্টা সফল হয়নি। সম্প্রতি সেই আপত্তির মেয়াদ আরও তিন মাস বাড়িয়েছে বেইজিং।

বিকাশের বক্তব্য, ‘‘জাতিসংঘ জইশকে নিষিদ্ধ করেছে। ওই সংগঠনের সবচেয়ে ভয়ঙ্কর জঙ্গিকে নয়। এ এক অদ্ভূত অবস্থা।’’ আজ জাতিসংঘেও এ নিয়ে ক্ষোভ জানিয়েছে ইনডিয়া। এমনকী জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদের কাজকর্ম নিয়েও প্রশ্ন তুলেছে দিল্লি।

ইনডিয়ায় ‘অসংখ্য সন্ত্রাসবাদী কাজের চক্রী’ মাসুদ আজহারকে ‘আন্তর্জাতিক সন্ত্রাসী’ হিসেবে তুলে ধরতে জাতিসংঘে প্রস্তাব এনেছিল ইনডিয়া। চিনের আপত্তিতে সেই প্রয়াস সফল হয়নি। এ দিন জাতিসংঘে ইনডিয়ার সদস্য সৈয়দ আকবরউদ্দিন বিষয়টি নিয়ে প্রবল ক্ষোভ জানান। তাঁর অভিযোগ, যাকে জঙ্গি সংগঠন বলে মনে করে জাতিসংঘজ, তার নেতাকেই সন্ত্রাসী হিসেবে তুলে ধরতে কোনও পদক্ষেপ করতে পারল না নিরাপত্তা পরিষদ। ইনডিয়ান প্রতিনিধির অভিযোগ, ১৫ সদস্যের নিরাপত্তা পরিষদের উপর গোটা বিশ্বে শান্তি প্রতিষ্ঠার ভার রয়েছে। অথচ তারা সময়ের দাবি ও প্রয়োজন অনুযায়ী প্রতিক্রিয়া জানাতে ব্যর্থ হয়েছে। নজিরবিহীনভাবে নিরাপত্তা পরিষদের কাজকর্ম নিয়ে প্রশ্ন তুললো ইনডিয়া, যদিও সরাসরি চিনের কথা তোলেনি।  

মাসুদকে সন্ত্রাসী হিসেবে তুলে ধরতে ইনডিয়ার সামনে বাধা বেইজিং। নিরাপত্তা পরিষদের স্থায়ী সদস্য হিসেবে চিন ভেটো প্রয়োগ করে দিল্লির প্রস্তাব আটকে দিয়েছে। নিরাপত্তা পরিষদের বাকি ১৪টি সদস্য দেশ যদিও মাসুদকে সন্ত্রাসী চিহ্নিত করতে চেয়েছিল। ইনডিয়ার চেষ্টা সফল হলে জইশ প্রধানের সম্পত্তি বাজেয়াপ্ত ও তার যাতায়াতে নিষেধাজ্ঞা জারি হতো।

জাতিসংঘে চিন যে আপত্তি জানিয়েছে, তার মেয়াদ গত সোমবার শেষ হওয়ার কথা ছিল। এ বিষয়ে বেইজিং নতুন বক্তব্য হাজির না করলে সন্ত্রাসী হিসেবে মাসুদকে তুলে ধরার কোনও অসুবিধা হতো না। শেষ মুহূর্তে তাদের আপত্তির সময়সীমা বাড়িয়ে দেয় বেইজিং। চিন সরকারের মুখপাত্র যুক্তি দেন, এর ফলে মাসুদের বিষয়ে আলোচনা করার সুযোগ বাড়বে।

ইনডিয়ায় সন্ত্রাসী কাজের অন্যতম ষড়যন্ত্রকারী এভাবে ছাড় পেয়ে যাওয়ায় জাতিসংঘে ক্ষোভ জানিয়েছে নয়াদিল্লি। আকবরউদ্দিনের মন্তব্য, নিরাপত্তা পরিষদ কোনও রকমে পরিস্থিতি সামাল দিতে এককালীন সিদ্ধান্ত নেওয়ার জায়গায় পরিণত হয়েছে। রাজনৈতিক পঙ্গুত্ব একে গ্রাস করছে।-আনন্দবাজার পত্রিকা

বিদেশ-এর সর্বশেষ খবর