আজ বুধবার 10:03 am08 July 2020    ২৩ আষাঢ় ১৪২৭    17 ذو القعدة 1441
For bangla
Total Bangla Logo

'বিমস্টেক'কে সার্কের বিকল্প বানাতে চায় ইনডিয়া, বাস্তবে কি তা হবে

ইরফান তাজ

আলজাজিরাবাংলা.কম

প্রকাশিত : ০১:৫৫ এএম, ১৫ অক্টোবর ২০১৬ শনিবার | আপডেট: ০৭:২৫ পিএম, ১৬ অক্টোবর ২০১৬ রবিবার

'বিমস্টেক'কে সার্কের বিকল্প বানাতে চায় ইনডিয়া, বাস্তবে কি তা হবে

'বিমস্টেক'কে সার্কের বিকল্প বানাতে চায় ইনডিয়া, বাস্তবে কি তা হবে

দক্ষিণ এশিয়ার আঞ্চলিক জোট সার্কের ভবিষ্যৎ নিয়ে যখন প্রশ্ন উঠেছে, তখন আরেকটি আঞ্চলিক জোট ‘বিমস্টেক’ কি তার জায়গা নিতে চাইছে? ইনডিয়া তাই চাচ্ছে।

এ প্রশ্ন উঠেছে ‘বিমস্টেক’ আঞ্চলিক জোটকে চাঙ্গা করার এক নতুন উদ্যোগকে ঘিরে। আজ শনিবার থেকে ইনডিয়ার গোয়ায় শুরু হতে যাচ্ছে বৃকস শীর্ষ সম্মেলন তথা বিমস্টেক আউটরিচ।

ব্রাজিল-রাশিয়া-ইনডিয়া-চীন ও দক্ষিণ আফৃকার বৃকস জোটের শীর্ষ নেতাদের সঙ্গেই সম্মেলনের আয়োজক দেশ ইনডিয়া এবার সেখানে আমন্ত্রণ জানিয়েছে বিমস্টেক দেশগুলোকেও-যাতে যোগ দিতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাও আগামীকাল রোববার গোয়াতে যাচ্ছেন।

সম্প্রতি ইসলামাবাদে সার্ক সম্মেলন বয়কটের মধ্যে দিয়ে ওই জোটের ভবিষ্যৎ যখন প্রশ্নবিদ্ধ, তখন দক্ষিণ ও দক্ষিণ পূর্ব এশিয়ার দেশগুলোর সম্মিলিত প্ল্যাটফর্ম বিমস্টেককে ঘিরে সদস্য দেশগুলোর মধ্যে নতুন উদ্দীপনা দেখা যাচ্ছে। তাহলে বিমস্টেকই কি হতে চলেছে পাকিস্তানকে বাইরে রেখে এক নতুন সার্ক?

 

বঙ্গোপসাগরকে ঘিরে থাকা বা বাণিজ্যের জন্য তার ওপর নির্ভরশীল, এমন সাতটি দেশ বাংলাদেশ, ইনডিয়া, থাইল্যান্ড, মিয়ানমার, শ্রীলঙ্কা ও নেপাল-ভুটান বিমস্টেকের সদস্য-এই সব দেশের প্রধান নেতারা সবাই আসছেন গোয়ার সমুদ্রতটে।

 

নেপাল-ভুটান ছাড়া বাকি পাঁচটি দেশ মিলে উনিশ বছর আগে যখন বিমস্টেকের সূচনা করেছিল, তার পর থেকে এই জোট এতটা গুরুত্ব আগে কখনো পায়নি।

 

তাছাড়া সার্ককে ঘিরে সাম্প্রতিক অনিশ্চয়তাও আঞ্চলিক কূটনীতির সমীকরণগুলো অনেক বদলে দিয়েছে, যার ফলে লাভবান হচ্ছে বিমস্টেক।

 

ইনডিয়ার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সেক্রেটারি (ইস্ট) প্রীতি শরণের কথায়, ইনডিয়া বিমস্টেককে তাদের এক্ট ইস্ট নীতি রূপায়নের একটি গুরুত্বপূর্ণ মাধ্যম হিসেবে দেখে। আগামী বছর কুড়ি বছর পূর্ণ করবে এই জোট, সেখানে নতুন প্রাণ সঞ্চার করার এটাই তো সময়।

 

সবচেয়ে বড় কথা, এই জোটের সদস্যদের মধ্যে কোনো বড় ইস্যু নেই, তাদের সবার দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ক দারুণ-সেটা একটা অত্যন্ত ইতিবাচক ব্যাপার।

 

বিমস্টেকের সূচনা যে চার রাষ্ট্রপ্রধানের হাত ধরে, তাদের মধ্যে একমাত্র শেখ হাসিনাই এখনো সক্রিয় রাজনীতিতে আছেন। তার নেতৃত্বে বাংলাদেশও কি তাহলে এখন সার্ককে পেছনে ফেলে বিমস্টেককে বেশি গুরুত্ব দিতে চলেছে?

 

দিল্লিতে বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত সৈযদ মোয়াজ্জেম আলি এ প্রশ্নের জবাবে বললেন, না, দেখুন, বিমস্টেক ও সার্কের লক্ষ্য ভিন্ন। সার্কের উদ্যোক্তা হিসেবে আমাদের লক্ষ্য ছিল, যদি আমরা অর্থনৈতিক সহযোগিতার মাধ্যমে অগ্রগতি করতে পারি, সেটা আমাদের মধ্যকার রাজনৈতিক মতপার্থক্য কমিয়ে আনার একটা উপযোগী পরিবেশ তৈরি করবে।


সার্ক যে ইনডিয়া-পাকিস্তানের রাজনৈতিক দ্বন্দ্বের ছায়া থেকে বেরোতে পারেনি সেটা সবারই জানা। ফলে ইনডিয়া নিজেও এখন তার পশ্চিম সীমান্ত থেকে চোখ সরাতে চায় পূর্বে বিমস্টেকের দিকে, যেখানে প্রবৃদ্ধি ও অগ্রগতির হাতছানি অনেক বেশি!

 

শীর্ষস্থানীয় ইনডিয়ান কূটনীতিক প্রীতি শরণের কথায়, যৌথভাবে এই অঞ্চলটি প্রতি বছর সাড়ে ছয় শতাংশ হারে প্রবৃদ্ধি করছে, দেড়শো কোটিরও বেশি মানুষ বা সারা পৃথিবীর জনসংখ্যার ২২ শতাংশ এখানে থাকেন, এই অঞ্চলের মোট জিডিপি ২.৭ টৃলিয়ন ডলারেরও বেশি।

 

ফলে এই জোটকে সফল করার জন্য সদস্য দেশগুলোর আগ্রহ কেন, তা বোঝা কঠিন নয়। পাশাপাশি সার্কে অগ্রগতি কেন হয়নি, সেটা তো আমরা সবাই জানি।

 

বিমস্টেককে নিয়ে নতুন উদ্দীপনার শরিক হলেও সার্ক ভাবনার জন্মদাতা যে বাংলাদেশ, তারা এখনই সার্কের মৃত্যু ঘোষণা করতে রাজি নয়।

 

হাইকমিশনার সৈয়দ মোয়াজ্জেম আলি বললেন, সার্কের গুরুত্ব মোটেই কমেনি। আমরা আমাদের বিবৃতিতে তখন জানিয়েছিলাম, পাকিস্তান আমাদের অভ্যন্তরীণ ব্যাপারে হস্তক্ষেপ করেছেন। ইনডিয়া যেখানে অলরেডি জানিয়েছে, তারা যাচ্ছে না, সেখানে এই পরিস্থিতিতে সার্ক সম্মেলনে পেছানো প্রয়োজন।

 

ভবিষ্যতে যখন সব ঠিক হয়ে যাবে তখন আবার আমরা সার্ক সম্মেলন করবো। এর আগেও সার্ক সম্মেলন দশবার স্থগিত হয়েছে। এবারই প্রথম নয়। কাজেই আমরা আশাবাদী।

 

সার্ক শীর্ষ সম্মেলন অচিরেই আবার হোক বা না-হোক-গোয়াতে আরব সাগরের তীরে এসে বঙ্গোপসাগর-কেন্দ্রিক সাতটি দেশের নেতারা বিমস্টককে যে নতুন গতির সঞ্চার করতে চলেছেন, তা এই জোটের ইতিহাসে নজিরবিহীন। তাতে বিমস্টেক সার্কের অনেক শক্তিশালী বিকল্প হিসেবে আত্মপ্রকাশ করতে পারবে কি না, সেটা জানার জন্য আরো কিছুটা অপেক্ষা করতেই হবে। -বিবিসি অবলম্বনে

বিদেশ-এর সর্বশেষ খবর