Total Bangla Logo
For bangla আজ শুক্রবার 2:47 pm
28 July 2017    ১৩ শ্রাবণ ১৪২৪    04 ذو القعدة 1438

পনের শাবান সম্পর্কিত শুদ্ধ ৪ কথা

মুফতি সাইদ আহমাদ পালনপুরি

টোটালবাংলা২৪.কম

প্রকাশিত : ০৫:১২ পিএম, ৯ মে ২০১৭ মঙ্গলবার | আপডেট: ০৫:১৩ পিএম, ৯ মে ২০১৭ মঙ্গলবার

একটি প্রতীকী চিত্র

একটি প্রতীকী চিত্র

১. এ রাতে আল্লাহ তায়ালা যতটুক তৌফিক দান করেন, ঘরে একাকি নফল ইবাদত করা৷ জামাতে নয়৷ পূর্ণরাতও জরুরি নয়৷ আজ আমরা এ রাতকে শোরগোলের রাতে পরিণত করেছি; মসজিদ, কবরস্থানে উপস্থিত হই৷ খানাপিনা, হৈ চৈ করি৷ এসব ভুল৷ এর কোনো বাস্তবতা নেই৷

২. দিনে রোজা রাখা মুস্তাহাব৷

৩. এ রাতে নিজের জন্য,  মৃত মুমিন বান্দাসহ সমগ্র উম্মতের মাগফেরাতের দোয়া করা৷ এজন্য কবরস্থানে যাওয়া জরুরি নয়৷ রাসুল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম চুপিসারে একাকি গিয়েছেন৷ ঘটনাক্রমে যা হজরত আয়শা (রযি.) দেখে ফেলেছিলেন৷ রাসুল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম এর কোনো নির্দেশ দেননি৷ বর্তমান এ ব্যপারে যা হচ্ছে তা ভুল৷

 

আরও পড়ুন : ‌‌‌‌...কেউই দলকে বাঁচাতে আসবে না- ওবায়দুল কাদের

 

৪. যাদের মধ্যে ঝগড়া বা মতবিরোধ রয়েছে তারা যেন পরস্পরে মীমাংসা করে নেয়৷ এমনটা না করল ক্ষমা করা হবে না৷

এই রাতের এ চারটি কাজ দুর্বল হাদিস দ্বারা প্রমাণিত। দুর্বল হাদিস তখনি পরিত্যক্ত হয় বিপরীত যখন সহিহ হাদিস থাকে৷ শবে বরাত নিষিদ্ধতার ব্যপারে কোন সহিহ বর্ণনা নেই, বিধায় এ দুর্বল হাদিসই আমল করত হব৷ এমনটা শুধু এ মাসলায়ই নয়, বরং আরো অনেক আমল রয়েছে যেটা দুর্বল হাদিস দ্বারা প্রমাণিত৷ যেমন সালাতুত তসবিহের এগার রাকাত হওয়ার ব্যপারে৷ শুরু যুগ থেকে এ নামাজের প্রচলন রয়েছে৷

 

আরও পড়ুন : পরিবারের সবাইকে নিয়ে ইসলাম কবুল করছেন বারাক ওবামা

 

স্মরণ রাখতে হবে, দুর্বল হাদিস দ্বারা কখনো ফরজ ওয়াজিব বা সুন্নাত প্রমাণ হয় না৷ বরং মুস্তাহাব সাবেত হয়৷ যেমন সালাতুত তাসবিহ পড়া মুস্তাহাব৷ অনুরূপ পনের শাবানের আমলগুলোও৷ শবে বরাত বা এর যত আমল রয়েছে এগুলো অকাট্য, এটা ভিত্তিহীন কথা৷ সুরা দুখানের তিন নাম্বার আয়াত "ইন্না আনঝালনাহু ফি লাইলাতিম্মুবারাকা" এ আয়াত দ্বারাও শবে বরাত উদ্দেশ্য নয়, বরং শবে কদর৷ কারণ, কোরআন কদরের রাতে অবতীরণ হয়েছিল৷

এলমি খুতবাত
২য় খণ্ড, ২৪৭ পৃষ্ঠা৷
আলোচক : শাইখুল হাদিস ও সদরুল মুদাররিসিন দারুল উলুম দেওবন্দ, ভারত

 

অনুবাদ

মাহদি হাসান সজিব
শিক্ষার্থী : দারুল উলুম দেওবন্দ, ভারত