আজ বৃহস্পতিবার 7:54 am09 July 2020    ২৪ আষাঢ় ১৪২৭    18 ذو القعدة 1441
For bangla
Total Bangla Logo

কাশ্মীর নিয়ে আলোচনা

দরজা বন্ধ রেখেছে হুরিয়াত

ডেস্ক রিপোর্ট

আলজাজিরাবাংলা.কম

প্রকাশিত : ০৫:৫৮ পিএম, ২১ সেপ্টেম্বর ২০১৬ বুধবার

দরজা বন্ধ রেখেছে হুরিয়াত

দরজা বন্ধ রেখেছে হুরিয়াত

 


কিন্তু তা মানতে রাজি হন নি হুরিয়াত সহ কট্টরপন্থী দলগুলি। তবুও সিপিআইএমের সীতারাম ইয়েচুরি, সিপিআইএ-র ডি রাজা, সংযুক্ত জনতা দলের শরদ যাদবরা আলাদাভাবে দেখা করতে গিয়েছিলেন হুরিয়াত নেতা সৈয়দ আলি শাহ গিলানির বাড়ি। কিন্তু দরজা খোলেন নি গিলানি। বন্ধ দরজার সামনে প্রায় মিনিট দশেক অপেক্ষা করার পর ফিরে আসতে বাধ্য হয়েছেন ইয়েচুরিরা। এরপর বাদগামের কাছে হুমহুমা পুলিশ স্টেশনে বন্দি জেকেএলএফ নেতা ইয়াসিন মালিকের সঙ্গে দেখা করতে গিয়েছিলেন ডি রাজা-ইয়েচুরিরা।

মালিককে বলেন, ব্যক্তিগতভাবে তারা দেখা করতে এসেছেন। কিন্তু প্রস্তাব ফিরিয়ে দিয়েছেন ইয়াসিন মালিক। একইভাবে মজলিস-ই-ইত্তেহাদুল মুসলিমের প্রেসিডেন্ট আসাদউদ্দিন ওয়েইসিদের ফিরিয়ে দিয়েছেন জেলবন্দী হুরিয়াত নেতা মিরওয়াইজ উমর ফারুকের মতো চরমপন্থী নেতারা। দিনভর দফায় দফায় বিভিন্ন শিবিরের সঙ্গে সর্বদলীয় প্রতিনিধি দলের বৈঠক হওয়ার পরেও কাশ্মীর নিয়ে কোনও আশার আলো দেখা যায় নি। বরং স্পষ্ট হয়েছে, আগামী দিনেও কাশ্মীর অশান্তই থাকবে।

অবশ্য কাশ্মীর-বিশেষজ্ঞরা প্রথম থেকেই এ বৈঠক নিয়ে বিশেষ আশাবাদী ছিলেন না। সর্বদলীয় প্রতিনিধি দলের বিশ্বাসযোগ্যতা নিয়েও প্রশ্ন উঠেছে। এর আগে ২০০৮ ও ২০১০-এ অশান্তির সময় সমস্যা সমাধানের প্রতিশ্রুতি দিয়ে গিয়েছিল সংসদীয় দল। সাবেক মুখ্যমন্ত্রী তথা ন্যাশনাল কনফারেন্স প্রধান ওমর আবদুল্লাহর অভিযোগ, উপত্যকা শান্ত হতেই প্রতিশ্রুতি ভুলে যায় সব শিবির। আম-জনতা তাই এবার প্রতিনিধি দলের কথায় ভুলতে নারাজ। ফলে চরমপন্থীদের মতোই একাধিক শিবির যেমন রবিবারের বৈঠকে গরহাজির ছিল, তেমনই প্রতিনিধি দলের সফরের বিরোধিতায় রাস্তায় নেমেছিল সাধারণ মানুষ। কাশ্মীরের সাধারণ মানুষ এখন স্থায়ী সমাধান চাইছেন।

এই স্থায়ী শান্তির জন্য সাধারণ মানুষ আরও দীর্ঘ সময় ধরে কষ্ট করতে রাজি। এদিকে সর্বদলীয় বৈঠকে অশান্তির জন্য পাকিস্তানকেই দায়ী করেছেন মুখ্যমন্ত্রী মেহবুবা। প্রতিনিধি দলের সদস্য তৃণমূল কংগ্রেস সাংসদ সৌগত রায় বলেছেন, যে তরুণরা পাথর ছুড়ছেন তাদের কে বোঝাবে, সেই প্রশ্নটি অমীমাংসিত রয়ে গিয়েছে। মেহবুবার অবশ্য দাবি, এই তরুণদের হাতে পাথর ছোড়ার জন্য টাকা দেওয়া হচ্ছে। এদের চালিত করছেন হুরিয়াত নেতত্ব।

বিদেশ-এর সর্বশেষ খবর