Total Bangla Logo
For bangla আজ বৃহস্পতিবার 12:36 am
27 July 2017    ১১ শ্রাবণ ১৪২৪    02 ذو القعدة 1438

তিন জোটের আলোচনা, এরশাদের ঘোষিত জোটে যাচ্ছে শায়খুল হাদিসের মজলিস

তাকরিম হাসান, বিশেষ প্রতিনিধি

টোটালবাংলা২৪.কম

প্রকাশিত : ০১:৫২ পিএম, ৬ মার্চ ২০১৭ সোমবার | আপডেট: ০৩:১৩ পিএম, ৬ মার্চ ২০১৭ সোমবার

হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ-এর সঙ্গে বৈঠকে শায়খুল হাদিসপুত্র মজলিস মহাসচিব মাওলানা মাহফুজুল হকের নেতৃত্বে একটি প্রতিনিধি দল।

হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ-এর সঙ্গে বৈঠকে শায়খুল হাদিসপুত্র মজলিস মহাসচিব মাওলানা মাহফুজুল হকের নেতৃত্বে একটি প্রতিনিধি দল।

ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের নেতৃত্বে ১৪ দলীয় জোট ও বিএনপির নেতৃত্বে ২০ দলীয় জোটের বাইরে নতুন তিন জোটের আলোচনা চলছে রাজনৈতিক মাঠে। এরই মধ্যে জাতীয় সংসদে বিরোধী দলের ভূমিকায় থাকা জাতীয় পার্টির নেতৃত্বে একটি জোট গঠনের ঘোষণা দিয়েছেন দলটির চেয়ারম্যান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ। বাকি দুটি জোট আলোচনায় থাকলেও এরশাদের ঘোষিত জোটে ইতিমধ্যে কয়েকটি দল সাড়াও দিয়েছে। এরশাদের নেতৃত্বে সম্ভাব্য জোটে শায়খুল হাদিস আল্লামা আজিজুল হক-এর অনুসারী বাংলাদেশ খেলাফত মজলিস এবং বাংলাদেশ ইসলামিক ইউনিয়ন নামে আরেকটি সংগঠন যোগ দিচ্ছে বলে জানা গেছে।
 

 

আরও পড়ুন-৫০ বছরে বিশ্বের বড় ধর্ম হবে ইসলাম, ৫০ সালে বেশি মুসলিম ইনডিয়ায়

 

গত ১৮ ফেব্রুয়ারি রাজধানীর বনানীতে একটি অনুষ্ঠানে জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ আগামী পারলামেন্ট নির্বাচনকে সামনে রেখে নতুন জোট গঠনের ঘোষণা দেন। নতুন জোট প্রসঙ্গে জাতীয় পার্টির মহাসচিব রহুল আমিন হাওলাদার জানান, আমরা ইসলামি আদর্শ অক্ষুণ্ণ ও জনগণের অধিকারের প্রশ্নে পৃথক একটি জোটের কথা ভাবছি। ইতোমধ্যে আমাদের দলের চেয়ারম্যান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের সঙ্গে দুইটি ইসলামি ভাবধারার দল যোগাযোগ করছে।

 

বিভিন্ন সূত্রে জানা গেছে, দুই জোটের বাইরে নিবন্ধিত রাজনৈতিক দলগুলোকে নিয়ে ড. কামাল হোসেনের নেতৃত্বে ‘জাতীয় ঐক্য প্রক্রিয়া’ নামে একটি নতুন জোট প্রক্রিয়ার মধ্যে রয়েছে। বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টি, আ স ম আবদুর রবের নেতৃত্বাধীন জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল (জেএসডি) ও বাংলাদেশের সমাজতান্ত্রিক দল (বাসদ) একটি জোট প্রক্রিয়া চালিয়ে যাচ্ছে।  
 

জোট গঠনের বিষয়ে এখনও কোন আহ্বান পাননি জানিয়ে গণফোরাম সভাপতি ড. কামাল হোসেন বলেন, স্বাধীনতার মূল স্পিরিট ও বাহাত্তরের সংবিধানের চেতনা নিয়ে কোনো জোট তৈরি হলে সেটা গণতন্ত্রের পথ সুগম করবে। জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দলের (জেএসডি) সভাপতি আ স ম আবদুর রব বলেন, ‘বিভিন্ন দলের সঙ্গে আলোচনা চলছে। আলোচনা ফলপ্রসূ হলে গণমাধ্যমের সামনে আনুষ্ঠানিকভাবে জানানো হবে।’

 

আরও পড়ুন-গণপূর্তের প্রধান প্রকৌশলীকে সরাতে হবে, নতুন কর্মসূচি ঘোষণা


 
বাংলাদেশের সমাজতান্ত্রিক দল বাসদের সাধারণ সম্পাদক খালেকুজ্জামান ভূঁইয়া বলেন, ‘জোট গঠনের উদ্যোগের সঙ্গে আমরা সম্পৃক্ত। এখনও তা আলোর মুখ দেখেনি। হয়তো দেখবে। বাসদ সে চেষ্টাই করে যাচ্ছে।’
 
জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দলের (জেএসডি) সাধারণ সম্পাদক আবদুল মালেক রতন বলেন, ‘গেল এক বছর ধরেই এই আলোচনা হচ্ছে। অনেকে তাদের চিন্তার সঙ্গে ঐক্যমত্য পোষণ করেছেন, অনেকে করেননি। নিবন্ধিত সকল দলকেই আমরা আমন্ত্রণ জানিয়েছি। এখন দেখি আমাদের এই আহ্বানে কোন কোন দল সাড়া দেয়।’

 

এরশাদ-মাহফুজ বৈঠক

 

সুপৃম কোর্টের সামনেসহ সারাদেশের রাস্তার মোড়ে মোড়ে মূর্তি স্থাপনের প্রতিবাদ এবং এগুলো সরানোর দাবিতে বাংলাদেশ খেলাফত মজলিসের মাসব্যাপী গণসংযোগ ও মতবিনিময় কর্মসূচির অংশ হিসেবে দলের মহাসচিব মাওলানা মাহফুজুল হক সাবেক প্রেসিডেন্ট ও জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের সঙ্গে একটি প্রতিনিধি দল নিয়ে বৈঠক করেছেন। রবিবার (৫ মার্চ ২০১৭) দুপুরে এরশাদের বনাানি অফিসেে এ বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। জাতীয় পার্টি এবং বাংলাদেশ খেলাফত মজলিস সূত্রে এসব তথ্য জানা গেছে।

 

মাওলানা মাহফুজুল হক মূর্তির বিরুদ্ধে তাঁর দলের চলমান আন্দোলনের বিষয়টি তুলে ধরেন এবং প্রকাশিত লিফলেট হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের হাতে দেন। এ সময় এরশাদ বলেন, সুপৃম কোর্টের সামনে গৃক দেবির মূর্তি বসানো হয়েছে। মুসলমান হিসেবে আমি তা মেনে নিতে পারি না। মুসলিম হিসেবে মূর্তির বিপক্ষে অবস্থান নেওয়া প্রতিটি মুসলমানের কর্তব্য। তিনি মূর্তিবিরোধী আন্দোলনে নিজের সমর্থন প্রকাশ করেন।

 

বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ খেফালত মজলিসের যুগ্ম-মহাসচিব মাওলানা জালালুদ্দীন আহমদ, মাওলানা আতাউল্লাহ আমীন, অফিস ও বায়তুলমাল সম্পাদক মাওলানা আজিজুর রহমান হেলাল, জাতীয় পার্টির মহাসচিব এবিএম রুহুল আমীন হাওলাদার, যুগ্ম-মহাসচিব এহিয়া চৌধুরী এমপি, ভাইস চেয়ারম্যান ও ঢাকা সিটি কাউন্সিলর শফিকুল ইসলাম সেন্টু প্রমূখ।

 

মাওলানা মাহফুজুল হক মূর্তির বিরুদ্ধে তাঁর দলের আন্দোলনের বিষয়টি সরকারের কাছে তুলে ধরতে সাবেক এই প্রেসিডেন্টের সহযোগিতা কামনা করেন।

 

সূত্রগুলোর দাবি, এ বৈঠকের মাধ্যমেই এরশাদের সম্ভাব্য জোটে যোগ দিয়ে আগামী পারলামেন্ট নির্বাচনে বাংলাদেশ খেলাফত মজলিস অংশ নেওয়ার বিষয়টি পরিষ্কার করেছে।

 

বাংলাদেশ ইসলামিক ইউনিয়নের সমন্বয়কারী মাওলানা আজিজুর রহমান আজিজ টোটালবাংলা২৪ ডটকমকে বলেন, এরশাদের নেতৃত্বে একটি জোট গঠনের ঘোষণা দেওয়া হয়েছে। তাঁর জোট ইসলামি মূল্যবোধের পক্ষে কাজ করবে বলে আমরা আশাবাদী। তাঁর জোটে যোগ দেওয়ার বিষয়ে আমাদের কোনো সিদ্ধান্ত বা বৈঠক এখনো হয়নি।

 

জানা গেছে, ইসলামি ও জাতীয়তাবাদী চেতনায় বিশ্বাসী ১০/১২টি দলের সঙ্গে ইতিমধ্যে এরশাদের সম্ভাব্য জোট নিয়ে আলোচনা চলছে। এর মধ্যে বেশিরভাগ দল থেকেই পজেটিভ সাড়া পেয়েছে জাতীয় পার্র্টি।