আজ শনিবার 5:14 pm08 August 2020    ২৪ শ্রাবণ ১৪২৭    18 ذو الحجة 1441
For bangla
Total Bangla Logo

কী আছে ইফার জুমার খুতবায়

ধর্ম প্রতিবেদক, ঢাকা

আলজাজিরাবাংলা.কম

প্রকাশিত : ০৮:৩১ পিএম, ২৭ সেপ্টেম্বর ২০১৬ মঙ্গলবার | আপডেট: ০১:৫৬ পিএম, ২৮ সেপ্টেম্বর ২০১৬ বুধবার

কী আছে ইফার জুমার খুতবায়

কী আছে ইফার জুমার খুতবায়

বৃহস্পতিবার রাতে ইফার জনসংযোগ বিভাগের সহকারী পরিচালক মুহাম্মদ নিজাম উদ্দিন স্বাক্ষরিত সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ পরামর্শ পাঠানো হয়। এর সাথে আরো দেয়া হয় দুই পৃষ্ঠার খুতবার আরবি ও বাংলা তরজমা।

‘অশান্তি, জঙ্গিবাদ ও সন্ত্রাস সম্পর্কে সতর্কীকরণ’ শিরোনামের খুতবাটি শুক্রবার বায়তুল মোকাররম জাতীয় মসজিদের জুমার নামাজে পাঠ করা হয়।

খুতবার বাংলা তরজমায় বলা হয়েছে, “হে মসুলমানগণ, মানুষ সে যাই হোক, তার জন্য পৃথিবীতে নিরাপদ জীবন ধারণের অধিকার স্বীকৃত। সে মুমিন হোক কিংবা কাফির, কিংবা ফাসেক হোক। অন্যায়ভাবে কাউকে খুন করা, সম্পদ গ্রাস করা কিংবা অপমানিত করা হারাম।”

খুতবা আরো বলা হয়, “কুরআন বলছে, আল্লাহ যার হত্যা নিষিদ্ধ করেছেন যথার্থ কারণ ছাড়া তাকে হত্যা করো না। আরো বলা হচ্ছে, যে অন্যায়ভাবে কোনো মানুষকে হত্যা করলো, সে যেন দুনিয়ার সব মানুষকেই হত্যা করলো। মহানবী বলেন, সর্বোচ্চ কবিরা গোনাহ হলো, মানুষ খুন করা। এখানে মুসলিম-অমুসলিম পার্থক্য করা হয়নি।”

খুতবায় অভিভাবকদের সচেতন করে বলা হয়, “আপনারা সন্তান-সন্ততির বিষয়ে বিশেষভাবে মনোযোগী ও সাবধান থাকুন। তাদেরকে সুন্দর চরিত্রের শিক্ষা দিন। তাদের বিষয়ে সজাগ থাকুন যে, আপনার সন্তানকে আপনার চোখ ফাঁকি দিয়ে যেন সন্ত্রাসীরা কেড়ে নিতে না পারে। সন্ত্রাসীরা অবুঝ সরল এই কিশোরদেরকে পরিবারের নিয়ন্ত্রণ থেকে ভাগিয়ে নিয়ে নানা অপকর্মের প্রশিক্ষণ দিয়ে জঙ্গি বানাতে চেষ্টা করে থাকে।”

খুতবার উপসংহারে বলা হয়, “সবশেষে আমরা আহ্বান করি আমাদের সন্তানদেরকে, আমাদের যুবকদেরকে সব সন্ত্রাসী কার্যক্রম থেকে বেঁচে থাকতে। হে আল্লাহ, আমাদের দেশ বাংলাদেশ। এ দেশকে আপনি সন্ত্রাস ও বিপর্যয় থেকে রক্ষা করুন এবং একে শান্তি ও সমৃদ্ধির দেশে পরিণত করুন।”

এদিকে ১০ জুলাই আইনশৃঙ্খলা-সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটির বৈঠক শেষে কমিটির সভাপতি ও শিল্পমন্ত্রী আমির হোসেন আমু সাংবাদিকদের বলেছিলেন, “প্রতি শুক্রবার জুমার নামাজে ইমাম সাহেবরা যে বয়ানগুলো দেন, তার ধরণ মনিটরিং করা ও সেগুলোর ব্যাপারে লক্ষ্য রাখার জন্য বলা হয়েছে।”

তিনি আরো বলেন, “যারা ধর্মপ্রাণ মুসলমান, যারা ওয়াজ-মাহফিল করেন, জুমার দিন খুতবা পড়েন তাদের কাছে অনুরোধ থাকবে, প্রকৃত ধর্মীয় অনুশাসন প্রতিষ্ঠার জন্য সন্ত্রাসীদের বিরুদ্ধে স্বোচ্চার হোন।”

উল্লেখ্য, ১ জুলাই রাজধানীর গুলশানের হলি আর্টিজান বেকারি রেস্তোরাঁয় সন্ত্রাসীরা হামলা চালিয়ে দুই পুলিশ কর্মকর্তাসহ দেশি-বিদেশি বিশজনকে হত্যা করা হয়। পুলিশের অভিযানে ছয় সন্ত্রাসীও নিহত হয়। এছাড়া ঈদের দিন কিশোরগঞ্জের শোলাকিয়া ঈদগাহের কাছে সন্ত্রাসীরা পুলিশের ওপর হামলা করে। এ ঘটনায় এক সন্ত্রাসীসহ চারজন নিহত হয়।

ধর্ম-এর সর্বশেষ খবর